শিরোনাম
নব নির্বাচিত এমপি আলহাজ্ব হাবীব হাসানের কাছে ঢাকা ১৮ আসনের জনগনের প্রত্যাশা ই-পাসপোর্ট যুগে প্রবেশ ৩টি রকেট আঘাত হানলো বাগদাদের মার্কিন দূতাবাদের কাছে সিপিবি’র সমাবেশে বোমা হামলা মামলায় ১০ আসামির মৃত্যুদণ্ড চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা: খালেদার জামিন খারিজের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত শাবানা আজমি: ‘কর্মফল’ হিসেবে দেখছেন বিজেপি সমর্থকরা সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক বিপিএল-এ এবারের চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী কেন্দ্রীয় সরকারের ডাকা জরুরি বৈঠকে যাবে না তৃণমূল কংগ্রেস নতুন কমিশন অনুযায়ী সাপ্তাহিক মজুরি পেতে শুরু করেছে পাটকল শ্রমিকরা

যৌন মিলনে স্ত্রীকে স্তন্যের মাধ্যমে উত্তেজিত করার পদ্ধতি! (ভিডিওসহ)

উত্তরা টাইমস
সম্পাদনাঃ ১৪ জুলাই ২০১৫ - ০৪:৩০:৩০ পিএম

টাইমস বিডি ডটনেট, ঢাকা: মেডিকেল সাইন্স এ যৌন স্বাস্থ্য নিয়ে যে বিপুল পড়াশোনা করেছি তার নানা বিষয়সহ বর্তমানে গবেষণালব্ধ অনেক জ্ঞানও আপনাদের কাছে শেয়ার করছি। তাই কোনো সময় আমাদের কোন লেখাকে অশালীন ভাবে নিবেন না! সম্মানিত পাঠকদের প্রতি এটা আমাদের অনুরোধ।

আমাদের দেশে এবং বিদেশে আমাদের রয়েছে অনেক গুনগ্রাহী। সুদুর ইউরুপ এবং আমেরিকাতেও রয়েছে আমাদের অনেক পাঠক এবং শুভাকাঙ্খী, যারা মাঝে মধ্যেই ফোন দিয়ে আমাদের শুভেচ্ছা জানায়। তাদের প্রতি রইলো আমাদের শুভ কামনা। এবার মূল বিষয়ে আসি।

যৌন মিলনের সময় স্ত্রীর স্তন্যের গুরত্ব যে কত এটা প্রত্যেক বিবাহিত পাঠকরা অবশ্যই বুঝতে পারেন। কিন্তু আপনি যদি কিছু টিপস জেনে নেন তাহলে আপনার স্ত্রীর নিকট আপনি আগের চেয়েও অধিক ভালোবাসার পত্র হবেন আশা রাখি।

যখন কোন পুরুষ তার স্ত্রীর স্তন্যে যৌন উত্তেজনা আনতে চান তখন তারা সরাসরি নিপলে (স্তন্যের বোটা) চলে যান। পুরুষ মুলতঃ এভাবে মনে করেন – ‘যেহেতু স্তন্যের বোটাই মুল উত্তেজক অংশ তাই শুধু শুধু অন্য অঞ্চলে সময় নষ্ট কেন?’এটা মোটেও ভাল বুদ্ধি নয়। কিন্তু আপনি হয়ত জানেন না স্ত্রীরা আরো অনেক বেশি জটিল।

স্ত্রীরা আশ্চার্যজনক কিছু ঘটতে যাচ্ছে কিছুক্ষনের মধ্যে সেই আশায় থাকতে বেশি পছন্দ করে। টেনশান এবং এক্সাইটমেন্ট তাদের বেশী পরিমানে উত্তেজিত করে। প্রত্যেক নারী তার জায়গার সর্বোচ্চ অবস্থানে গিয়ে মজা অনুভব করে। যৌন মিলনের সময় একসাথে শুরু না হয়ে ক্রমশঃ উত্তেজনা সৃষ্টি হোক এটাই স্ত্রীদের প্রত্যাশা।

আসুন দেখি স্ত্রীরা কিভাবে এটা চায় ?
যখন আপনি স্ত্রীর স্তন্যে চুমো খাচেছন, এটা অতি উত্তম আপনি যদি স্তন্যের ভিত্তি (বেইস – নিপল থেকে সর্বচ্চো দূরে) থেকে শুরু করেন। চুমো, লেহন এবং স্পর্শ সবকিছুই থাকবে স্তন্যের ভিত্তির আশ-পাশ ঘেসে।

তারপর আস্তে আস্তে পুর্ন বৃত্তে সাপের মত চারপাশ ঘুর্নন পরিপুর্ন করুন। অতঃপর আরেকটু উপরের দিকে পুনরার বৃত্তাকারে চুমা, লেহন এবং স্পর্শ করে অন্য ঘুর্নন বলয় তৈরি করুন। এভাবে আস্তে আস্তে স্তন্যের বোটার দিকে আসুন।

আপনি যত বেশি সময় নিয়ে বোটার কাছাকাছি আসবেন তত বেশি সে উত্তেজিত হবে। এ অবস্থায় বেশিরভাগ স্ত্রী তার এক্সপ্রেশান দিয়ে আহ্ববান করবে তার স্তন্যের বোটা আপনার মুখে নেয়ার জন্য। এমনকি কেউ কেউ হাত দিয়ে আপনার মাথা টেনে তার বোটা চোষার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে পারে।

ধর্য্য ধরুন। এখনি মুখে স্তন্যের বোটা নিবেন না। স্তন্যের বোটার কাছাকাছি আপনার সিঙার চালিয়ে যান। তাকে আরো ক্ষুধার্ত করে তুলুন। স্তন্যের বোটায় পৌছার আগে বোটার পাশের বাদামী রঙের অঞ্চল (এ্যরুলা) জুড়ে পুর্বের ন্যায় চুমা, লেহন এবং স্পর্শ করুন। এখানে কিছুটা সাবধান তার প্রয়োজন আছে। খেয়াল রাখবেন স্তন্যের বোটায় যেন কোন ছোয়া না লাগে।

এবার স্তন্যের বোটা!
প্রথমে জিহ্বা দিয়ে একবার লেহন করুন। এবার হালকা ফু দিন লেহনকৃত অঞ্চলে। এটি ঠান্ডা গরম যুক্ত একপ্রকার অনুভুতি জাগাবে তার স্তন্যে, যা অনেক নারী পছন্দ করেন।

এর পুনরাবৃত্তি পুরা বোটা জুড়ে করুন। এবার কিছুক্ষনের জন্য স্তন্যের বোটাটি মুখের ভিতর পুরে রাখুন এবং জিহ্বা দিয়ে ভেতর থেকে লেহন করুন।

এখন সময় চরম চোষার!
স্তন্যের বোটা আপনার মুখের ভিতর থাকা অবস্থায় আপনার ঠোট দিয়ে চাপ দিতে থাকুন। তারপর ক্রমশঃ আপনার ঠোটের চাপ কমিয়ে বোটা ছেড়ে দিন। এবং পুনরায় পুর্বের কাজগুলো (বোটা মুখে নেওয়া, চোষা এবং ঠোট দিয়ে চাপ দেওয়া)। এবার আবার বোটা ছেড়ে পুর্বের ন্যায় সমস্ত স্তন্য জুড়ে আপনার তান্ডব চালান। তারপর আবার বোটায় ফিরে আসুন।

হাতের ব্যবহার:
যখন আপনার মুখ তার স্তনে কাজ করছে তখন আপিনি হালকা করে হাত দিয়ে অন্য স্তনে ক্রমাগত চাপ দিতে পারেন। লক্ষ্য রাখবেন অনেক নারী চায় এক স্তন্যে সমস্ত কর্মকান্ড শেষে অন্য স্তন্যের সিঙার চালু হোক। তাই আপনার সঙ্গীকে অবশ্যই জিজ্ঞেস করে নিন তার কি রকম চাই?

গুরুত্বপুর্ন কিছু বিষয় যে গুলো সর্বদা মনে রাখবেন :

কখনো দাত দিয়ে স্তন্যে বা বোটায় কামড় দিবেন না। বেশিরভাগ মহিলারাই এটা পছন্দ করেননা। এতে বরং তার আগ্রহ মরে যায়।

কখনো এমন জোরে হাতের চাপ দিবেন না যাতে আপনার স্ত্রী ব্যথা অনুভব করে।

কখনো স্তন্যের বোটা টুইষ্ট (রেডিওর নব এর মত ঘুরানো) করবেন না।

আপনি তাকে কানে কানে বলতে পারেন আপনি তার স্তন্য যুগল কত্ত বেশি পছন্দ করেন। বলতে পারেন তোমার স্তন্যের বোটা মুখে নিয়ে মনে হল আমি অমৃত চুষছি।

শুধু স্তন্যে থেমে থাকবেন না। দুই স্তন্যের মাঝের অংশটিতেও চুমো দিন এবং লেহন করুন মাঝে মাঝে।

তার কাছ থেকে তার মন্তব্য জিজ্ঞেস করুন। তার ভাললাগা/খারাপলাগার কথা শুনুন এবং সে অনুযারী সামনে অগ্রসর হন।

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর

Uttara Times

Like us on Facebook!
Sign up for our Newsletter

Enter your email and stay on top of things,

Subscribe!