শিরোনাম
নব নির্বাচিত এমপি আলহাজ্ব হাবীব হাসানের কাছে ঢাকা ১৮ আসনের জনগনের প্রত্যাশা ই-পাসপোর্ট যুগে প্রবেশ ৩টি রকেট আঘাত হানলো বাগদাদের মার্কিন দূতাবাদের কাছে সিপিবি’র সমাবেশে বোমা হামলা মামলায় ১০ আসামির মৃত্যুদণ্ড চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা: খালেদার জামিন খারিজের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত শাবানা আজমি: ‘কর্মফল’ হিসেবে দেখছেন বিজেপি সমর্থকরা সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক বিপিএল-এ এবারের চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী কেন্দ্রীয় সরকারের ডাকা জরুরি বৈঠকে যাবে না তৃণমূল কংগ্রেস নতুন কমিশন অনুযায়ী সাপ্তাহিক মজুরি পেতে শুরু করেছে পাটকল শ্রমিকরা

রাজনীতির সঙ্গে পড়াশোনায় মন দিতে হবে; ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের প্রধানমন্ত্রী

উত্তরা টাইমস
সম্পাদনাঃ ০৫ অক্টোবর ২০২১ - ০১:১১:২১ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ-
হলসহ মেয়াদোত্তীর্ণ শাখাগুলো সম্মেলনের মাধ্যমে আরও শক্তিশালী করতে ছাত্রলীগ নেতাদের নির্দেশনা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরে কেউ যেন শিক্ষার পরিবেশ বিঘ্ন করতে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে বলেছেন। এ ছাড়া রাজনীতির পাশাপাশি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের পড়াশোনায় আরও মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, সবাই নেতা হবে না, সম্ভবও নয়। এজন্য পড়াশোনা করতে হবে। পড়াশোনার কোনো বিকল্প নেই। আধুনিক ও প্রযুক্তি শিক্ষায়ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বেশি করে মনোযোগ দিতে হবে। সোমবার সন্ধ্যায় ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আন্তরিক আলাপচারিতায় তিনি এই নির্দেশনা দেন। এ সময় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি সনজিদ চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহীম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সাঈদুর রহমান হৃদয়, দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান, সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

জানতে চাইলে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, আমরা নেত্রীর (শেখ হাসিনা) সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছি। তিনি আমাদের বিভিন্ন কার্যক্রমের বিষয়ে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। নেত্রী আমাদের কর্মকাণ্ডের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এবং আমরা যেভাবে ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছি তা অব্যাহত রাখতে বলেছেন।

সূত্র জানায়, জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্ক যাওয়ার আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের সাক্ষাতের তারিখ নির্ধারণ হয়েছিল। তবে সময় না মিলায় তখন তা হয়ে ওঠেনি। যুক্তরাষ্ট্র সফর ও জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদানের বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করতে সোমবার বিকালে সংবাদ সম্মেলন করেন প্রধানমন্ত্রী। তার আগেই ছাত্রলীগের নেতাদের গণভবনে ডেকে নেন তিনি। প্রায় সোয়া দুই ঘণ্টা ধরে সংবাদ সম্মেলন চলে। সংবাদ সম্মেলন শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ছাত্রলীগ নেতাদের সঙ্গে আলাপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

সূত্র জানায়, শুরুতেই ছাত্রলীগ নেতাদের কথা বলতে দেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য তাদের কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে করণীয় কী এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা চান। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা আসুক। চেনা পরিবেশে ফিরে আসুক তারা। তবে শিক্ষাঙ্গনে শিক্ষার্থীদের স্বাভাবিক পরিবেশ যেন বিঘ্ন না ঘটে সেজন্য সেদিকটা লক্ষ রাখতে হবে। কেউ যেন শিক্ষার্থীদের ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কোনো বিষয়ে সমস্যা হলে কিংবা সিদ্ধান্ত নিতে না পারলে ছাত্রলীগের দেখভালের দায়িত্বরত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় চার নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, বাহাউদ্দিন নাছিম ও বিএম মোজাম্মেল হকের পরামর্শ নিতে বলেন তিনি।

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হল কমিটির বিষয়ে কথা বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি সনজিদ চন্দ্র দাস। তিনি বলেন, অনেক দিন হলো ঢাবির হল কমিটি হয় না। এতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে এক ধরনের হতাশা দেখা দিয়েছে। তখন শেখ হাসিনা বলেন, তাড়াহুড়ো না করে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর পরিস্থিতি দেখো, তারপর ধীরেসুস্থে কমিটি দেওয়ার প্রস্তুতি নাও।

আরেকটি সূত্র জানায়, আলাপকালে প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগ নেতাদের বলেন, করোনা সংক্রমণ তো এখন অনেক কমে গেছে। এখন তোমরাও সংগঠন গোছানোর কাজ শুরু করো। যেসব জায়গায় কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ আছে, সেগুলোর সম্মেলন করে নতুন করে ঢেলে সাজাও।

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর

Uttara Times

Like us on Facebook!
Sign up for our Newsletter

Enter your email and stay on top of things,

Subscribe!